মঙ্গলবার, ৩০ মার্চ, ২০২১

কৃষকের পাশে ম্যাকাউট , মোবাইলের এক ক্লিকেই ফসলের রোগ নির্ণয়

 

কৃষকের পাশে ম্যাকাউট

মোবাইলের এক ক্লিকেই ফসলের রোগ নির্ণয়

 


মৌলানা
 আবুল কালাম আজাদ প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয় বা ম্যাকাউট


ফসলের গাছের কোনও রোগ হয়েছে? মোবাইলে স্পষ্ট ছবি তুলে সেটা পাঠিয়ে দিন ওয়েবসাইটে। সফ্টওয়ারের মাধ্যমে দ্রুত ফসলের রোগ নির্ণয় হবে। শুধু তাই নয়, রোগ নিরাময়ের দিশাও দেখানো হবে সেখানে। 

এভাবে পাকাপাকি কৃষকদের দুশ্চিন্তা অনেকটাই কমতে চলেছে। অন্তত প্রাথমিক পর্যায়ে সেই আশা দেখাচ্ছে পশ্চিমবঙ্গের মৌলানা আবুল কালাম আজাদ প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয় বা ম্যাকাউট। 

কী ভাবে?

কৃষক বন্ধুদের সব থেকে বড় চিন্তা ফসলের রোগ। ফসলের রোগ হলে চিকিৎসার আগে প্রয়োজন রোগ নির্ণয়। যত দেরিতে সেই রোগ নির্ণয় হবে ততই পরিস্থিতি জটিল হতে থাকে।  এবার সেই সমস্যা পুরোপুরি ভাবে মিটতে চলেছে। ম্যাকাউট দ্রুত সফ্টওয়রের মাধ্যমে সেই রোগ নির্ণয় করতে সাহায্য করবে। এমনকী এর পরে প্রয়োজনীয় পদক্ষেপও নেবে ম্যাকাউট। এমনকী আবহাওয়ার আগাম আভাসও দেবে এই সফ্টওয়ার।   সেই লক্ষ্যেই চালু হয়েছে প্রিসিশন ফার্মিং। অর্থাৎ, যে লিংক দেওয়া থাকবে সেখানে গিয়ে সমস্যার কথা জানালেই দ্রুত পদক্ষেপ শুরু হবে।

http://insp.makautwb.ac.in/cpf



এর মূল লক্ষ্যগুলি ':

 

রোগ শনাক্তকরণ

রোগের পূর্বাভাস

আবহাওয়ার পূর্বাভাস

 

ম্যাকাউট কৃষকদের কৃষিতে ভবিষ্যতের প্রযুক্তি সম্পর্কে ধারণা দিতে চায়। কেন্দ্রটিতে একটি সফ্টওয়্যার মাধ্যমে ফসলের রোগ শনাক্তকরণের সুবিধা থাকবে এবং সে অনুযায়ী প্রয়োজনীয় পদক্ষেপ গ্রহণ করা হবে। আবহাওয়ার পূর্বাভাসের ক্ষেত্রে, নির্ভুল চাষের নতুন প্রযুক্তিটি একটি নির্দিষ্ট অঞ্চলের আবহাওয়াকে গুরুত্ব দেয়, যাতে কৃষকরা প্রচুর উপকার পেতে এবং তদনুসারে ফসল উৎপাদন  করতে পারেন।

 

প্রকৃতপক্ষে, প্রিসিশন ফার্মিং একটি কৌশল যা সাময়িক, এবং স্বতন্ত্র তথ্য সংগ্রহ করে এবং বিশ্লেষণ করে।  এবং উন্নত প্রযুক্তি ব্যবহারের দক্ষতা, উৎপাদনশীলতা, গুণমান, তথ্যের সঙ্গে একত্রিত করে। এই তথ্য এবং প্রযুক্তি-ভিত্তিক সিস্টেমটি সঠিক স্থানে এবং সঠিক উপায়ে ভূমি রক্ষার জন্য সঠিক ফসল উৎপাদন পরিচালনা করে ক্ষেত্রগুলিতে পরিবর্তনশীলতা চিহ্নিত করে।   রাসায়নিক সার এবং কীটনাশক প্রয়োগের এলোমেলো প্রয়োগের কারণে আজকাল জমির উর্বরতা অনেক হ্রাস পাচ্ছে। সে দিকেও নজর রাখে এই সফ্টওয়ার।  

 

সম্প্রতি মৌলানা  আবুল কালাম  আজাদ প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয় নির্ভুল চাষ বা প্রিসিশন ফার্মিং এর ওপরে একটি গবেষণা কেন্দ্র সল্টলেক ক্যাম্পাসে উদ্বোধন করেন।  এই উপলক্ষ্যে অনলাইন ওয়েবিনার হয়।  সেখানে ছিলেন  খড়্গপুর আইআইটি- ডিরেক্টর বীরেন্দ্র কুমার তিওয়ারি।  এছাড়া ছিলেন দিল্লি আইআইটি- অধ্যাপক এস কে সাহা, বিধানচন্দ্র কৃষি বিশ্ববিদ্যালয়ের অধ্যাপক পি হাজরা , কলকাতা সিড্যাকের উপ অধিকর্তা শ্রী অলকেশ ঘোষ।  অনুষ্ঠানে ছিলেন ম্যাকাউটের উপাচার্য অধ্যাপক সৈকত মৈত্র। গবেষণা কেন্দ্রের তরফে ছিলেন শ্রী প্রীতিময় সান্যাল। 


ধন্যবাদ 

শনিবার, ২৭ মার্চ, ২০২১

চোখের তারায় রাঙাবো তুলি , রূপা চক্রবর্ত্তী

চোখের তারায় রূপা চক্রবর্ত্তী


 

 

যিনি রাঁধেন, তিনি চুলও বাঁধেন। 

ব্যাপক প্রচলিত এই কথাটি আরও একবার শক্ত বুনিয়াদের উপরে প্রতিষ্ঠা করলেন তিনি।

একটি বিশ্ববিদ্যালয়ের গুরুত্বপূর্ণ বিভাগ অবশ্যই রেজিস্ট্রার ডিপার্টমেন্ট। টেবিলে পড়ে থাকা ফাইলকে যথাস্থানে পাঠানোর এবং কর্তৃপক্ষের সিদ্ধান্তকে বাস্তবায়িত করার চাপ থাকে সব সময়ই। এত চাপ সত্ত্বেও নিজের মধ্যে থাকা  কবি সত্ত্বাকে প্রকাশ করা সম্ভব ?

উত্তর অবশ্য হ্যাঁ।

সেটা সত্যি করে দেখালেন মৌলানা আবুল কালাম আজাদ প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের (ম্যাকাউট)   রেজিস্ট্রার ডিপার্টমেন্ট-এর কর্মী শ্রীমতি রূপা চক্রবর্ত্তী। 


মাননীয়
 উপাচার্য অধ্যাপক সৈকত মৈত্র মহাশয়ের হাতে
 নিজের লেখা কবিতার বই তুলে দিচ্ছেন রূপাদেবী 

 

হাজারো কাজের চাপের মাঝে, মানসিক চাপকে কিছুটা দূরে সরিয়েই নিজের অন্তরের সত্ত্বাকে বাইরে বের করে আনতে পেরেছেন রূপাদেবী তার প্রমাণ হিসেবে আমরা হাতে পেলাম তাঁর লেখা 'চোখের তারায় ' শীর্ষক এক কবিতা সম্ভার। বইমেলায় সদ্য প্রকাশিত সেই বই তিনি এবারে তুলে দিলেন ম্যাকাউটের মাননীয় উপাচার্য অধ্যাপক সৈকত মৈত্র মহাশয়ের হাতে।  নিজের মধ্যে লুকিয়ে থাকা এক সত্ত্বাকে প্রকাশ করায় যথেষ্ট খুশি হয়েছেন মাননীয় উপাচার্য মহাশয়।    

 

খুশি হওয়ার মতই প্রায় ৭০টির বেশি কবিতা রয়েছে এই চোখের আলোয়।  কবির 'চোখের তারায়' কবিতা সম্ভারে  'হারানো শৈশব', 'চোরা স্রোত' , 'কর্মে হোক স্মরণ', 'তোমার গৌরী বোধনে', 'ভালোবাসি বার বার' সহ একাধিক কবিতা মনে দাগ কাটার মত। মাননীয় উপাচার্য মহাশয় নিজেই পাঠ করলেন  'চোরা স্রোত'।   

 



মাননীয়
 উপাচার্য অধ্যাপক সৈকত মৈত্র 


মাননীয় উপাচার্য মহাশয় সব সময়ে বলে থাকেন প্রত্যেকের মধ্যেই অনেক সুপ্ত প্রতিভা রয়েছে। সেগুলিকে বাইরে বের করে আনা প্রয়োজন। রূপাদেবী যে সাফল্যের সঙ্গে অন্তরে এলোমেলো ভাবে থাকা কবি সত্ত্বাকে সুন্দর ও শৌখিন ভাবে সাজিয়ে বাস্তবে প্রতিফলিত করেছেন তা সত্যিই প্রশংসার যোগ্য। 

 

পরবর্তীকালে আমরা চোখের আরও তারা দেখতে পাব, এই আশা রাখলাম।

 

ধন্যবাদ 









মাধ্যমিক - উচ্চ মাধ্যমিক পরীক্ষার্থীদের সাহায্যে ম্যাকাউট

  ম্যাকাউটের বন্ধন মাধ্যমিক - উচ্চ মাধ্যমিক পরীক্ষার্থীদের সাহায্যে ম্যাকাউট     আর মাস খানেক পরেই মাধ্যমিক ও উচ্চ মাধ্যমি...