রবিবার, ৫ জুলাই, ২০২০

ই- বুক প্রকাশের অনুষ্ঠান


ই- বুক প্রকাশের অনুষ্ঠান


পুরো ই-বুক দেখতে ক্লিক করুন 

https://drive.google.com/file/d/17JshWPKITaeZdenbE6ju7ANkbogV_rG0/view?usp=sharing

আগেই বলেছিলাম বছরের সব থেকে বড় আঘাত করোনা । যে আঘাত গোটা বিশ্বকে বিচলিত করে তুলেছে। মৃত্যু, আতঙ্ক এবং অসুস্থতা কার্যত মানুষের দৈন্দন্দিন খবরে পরিণত হয়েছে। গোটা পৃথিবীতে আজ অধিকাংশ মানুষ বড়ই অসহায়। কিন্তু এই সঙ্কটময় পরিস্থিতিতেও অনেকেই 'মানুষ মানুষের জন্য',এই কথাটিকে বাস্তবে হাতে কলমে করে দেখিয়েছেন। তাঁদের প্রতি কুর্নিশ জানাতেই মৌলানা আবুল কালাম আজাদ প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের (ম্যাকাউট) মাননীয় উপাচার্য অধ্যাপক সৈকত মৈত্র মহাশয় একটি -বুক 'সাধারণ মানুষের অসাধারণ কথা 'প্রকাশের সিদ্ধান্ত নেন। বিভিন্ন সংবাদপত্রে প্রকাশিত ঘটনাগুলিকে একসঙ্গে করে সেখান থেকে কয়েকটি চরিত্রকে বেছে নিয়ে তৈরী হয় এই -বুক। সেই মত শনিবার জুলাই বাংলা ওয়ার্ল্ডওয়াইড এর সহযোগিতায় অনলাইনে সেই বই প্রকাশিত হল।   


চাঁদের হাট 

মাননীয় উপাচার্য অধ্যাপক সৈকত মৈত্র মহাশয়

বাংলা ওয়ার্ল্ডওয়াইড ' বিশ্বজুড়ে সমস্ত বাঙালিকে একসঙ্গে এক ছাদের তলায় নিয়ে আসার এক মঞ্চ । অনলাইন-অফলাইন এমনকি সামান্য উপায়েও সমস্ত বাঙালিকে এক সুতোয় বেঁধে রাখেন। যেন বাঙালিয়ানার এক আদর্শ স্থান। শনিবার সেই মঞ্চের হাত ধরেই উদ্বোধন হল 'সাধারণ মানুষের অসাধারন কথা' নামের ই-বুক।  এই বইতে যাঁদের কথা রয়েছে এককথায় তাঁরা যোদ্ধা। করোনার বিরুদ্ধে অবিরত লড়তে থাকা যোদ্ধা। তাঁদের অবদানগুলি কখনই হ্রাস করার দুঃসাধ্য আমাদের নেই। চিকিৎসক, নার্স, স্বাস্থ্যকর্মী পুলিশ ছাড়াও সাধারণ, এমনকি দরিদ্র মানুষও অন্যের যত্ন নেওয়ার জন্য নিজের জীবন ঝুঁকিতে ফেলছেন। সমস্ত স্তরের মানুষ তাঁদের নিজস্ব উপায়ে এবং তাদের সীমিত সংস্থান নিয়ে একে অপরের পাশে দাঁড়িয়েছেন।  উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে  উপাচার্য অধ্যাপক মৈত্র বলেছিলেন, রাজ্যের বহু সাধারণ মানুষ এবং কর্মীরা নিজের এবং তাদের পরিবারকে রক্ষা করার পাশাপাশি কী  ভাবে সাধারণ মানুষের সাহায্যে এগিয়ে এসেছেন এই বই তারই দলিল।  এবং তাঁদের কুর্নিশ জানাতেই এই বই প্রকাশের ভাবনা। 

দূরদর্শনের সিনিয়র সাংবাদিক এবং কলকাতা প্রেস ক্লাবের সভাপতি স্নেহাশিস শূর এই -বুকের প্রশংসা করেছেন। এর মাধ্যমে সাধারণ মানুষের লড়াই সহযোগিতাগুলিকে একসঙ্গে নথিভুক্ত করার প্রচেষ্টার জন্য ম্যাকাউটকে ধন্যবাদ জানিয়েছেন। 

মুম্বই হাইকোর্টের প্রাক্তন প্রধান বিচারপতি, মহারাষ্ট্র এবং গোয়ার প্রাক্তন রাজ্যপাল মাননীয় চিত্ততোষ মুখোপাধ্যায় বলেছিলেন যে সঙ্কটের এই মুহুর্তে এই প্রকাশনা অত্যন্ত প্রাসঙ্গিক। তিনি ম্যাকাউটের প্রতি কৃতজ্ঞতা প্রকাশ করেছেন এবং এই আন্তরিক প্রচেষ্টার জন্য উপাচার্যকে অভিনন্দন শুভেচ্ছা জানিয়েছেন।

 পিয়ারলেস হাসপাতালের অধিকর্তা বিশিষ্ট মেডিকেল প্র্যাকটিশনার ডাঃ সুজিত করপুরকায়স্থ বলেন, হঠাৎ বাজার থেকে অদৃশ্য হয়ে গেলে লকডাউনের প্রাথমিক পর্যায়ে হ্যান্ড স্যানিটাইজার বিতরণে ম্যাকাউটের মাননীয় উপাচার্য অধ্যাপক সৈকত মৈত্রের প্রচেষ্টার প্রশংসা করেছেন। সামাজিক উন্নয়নের জন্য এ জাতীয় প্রয়াসের জন্য তিনি একজন বাঙালি হিসাবে গর্বিত।

 পশ্চিমবঙ্গ বিদ্যুৎ নিয়ন্ত্রক বোর্ডের চেয়ারম্যান এবং কয়লা ইন্ডিয়া লিমিটেডের প্রাক্তন চেয়ারম্যান সুতীর্থ ভট্টাচার্য হাসপাতাল অফিসগুলিতে হ্যান্ড স্যানিটাইজার বিতরণের জন্য উপাচার্যের প্রশংসা করেছিলেন। তিনি উল্লেখ করেছিলেন, কিছু সংখ্যক ব্যবসায়ী সংকটের সুযোগ নিতে উচ্চমূল্যে নিম্ন গ্রেডের স্যানিটাইজার বিক্রি করছিলেন। এই মুহুর্তে, মাকাউট বিষয় স্বাস্থ্য সংস্থা (হু )- নির্দেশাবলী অনুসরণ করে স্যানিটাইজার তৈরি করেছিলেন, যা সুন্দরবনের দরিদ্র, অভাবী প্রবীণ নাগরিকদের মধ্যে বিতরণ করা হয়েছিল। এই -বুকের প্রকাশ পুরো পৃথিবীতে প্রশংসিত হবে বলেই জানান তিনি। তিনি মানবতার মূল্য দেওয়ার কথাও বলেন। 

 ম্যাকাউটের রেজিস্ট্রার ডঃ পার্থ প্রতিম লাহিড়ী বলেছেন যে ম্যাকাউট দ্বারা এই -বুক প্রকাশ করা সমাজের জন্য শ্রদ্ধাঞ্জলি। এটি শিক্ষা, শিখন এবং গবেষণা ছাড়াও ম্যাকাউটের আউটরিচ কার্যক্রমের একটি অংশ।

 মকাউটের ফিনান্স অফিসার ডঃ অত্রি ভৌমিক প্রখ্যাত কবি শক্তি চট্টোপাধ্যায়ের বিখ্যাত এক কবিতার কয়েক লাইন বলেন। তিনি বলেন, সমাজকে পরিষেবা দিতে ম্যাকাউট এই ধরনের কাজ করেছে। এটা সামাজিক দায়বদ্ধতা। 

 পরীক্ষা নিয়ামক ডঃ শুভাশিস দত্ত এই -বুক উদ্বোধনের জন্য বাংলা ওয়ার্ল্ডওয়াইডকে ধন্যবাদ জানান।

 ম্যাকাউটের তথ্য বিজ্ঞানী ডঃ মহ. আফতাবউদ্দিন যথাযথভাবে উল্লেখ করেছিলেন যে দরিদ্র মানুষের ভালবাসা আশীর্বাদ ম্যাকাউটকে এগিয়ে নিয়ে যাওয়ার অনুপ্রেরণা।

 ম্যাকাউটের সহকারী রেজিস্ট্রার অনুপ কুমার মুখোপাধ্যায় এই মহামারী প্রাকৃতিক দুর্যোগকালীন সময়ে সামাজিক আহ্বানে অংশ নিতে  নেওয়ার অনুপ্রেরণায় উপাচার্যের প্রশংসা করেছেন। তাঁর সকল অগ্রজদের কথা উল্লেখ করে বলেন ম্যাকাউট ত্রাণ সামগ্রী বিতরণের জন্য ৭৪৮ টি গ্রাম এবং অনেক স্কুল পরিদর্শন করেছেন। সব সময় ম্যাকাউটের সকলের ভালবাসা মাথায় নিয়ে তিনি গিয়েছিলেন। ম্যাকাউট আরও সমাজকল্যাণ মূলক কাজে অংশগ্রহণ করবে বলেই দৃঢ় প্রতিজ্ঞ ম্যাকাউটের গোটা পরিবার।

                                                    সকলকে ধন্যবাদ।

কোন মন্তব্য নেই:

একটি মন্তব্য পোস্ট করুন

বাড়িতে বসেই বিনামূল্যে শিখুন Animated Presentation

  বাড়িতে বসেই বিনামূল্যে শিখুন Animated Presentation     অতিমারীর সময় থেকেই অনলাইন শিক্ষা প্রায় আবশ্যিক হয়ে উঠেছে। তাই অন...